সুস্বাস্থ্যকর্মী হোন, মানুষকে ডিজিটাল স্বাস্থ্যসেবা দিয়ে নিজের উপার্জন বাড়ান!

PlayPause
Slider

সুস্বাস্থ্য সেবা

পৃথিবীর মোট আয়তনের মাত্র ০.০৩% আয়তনের বাংলাদেশে বাস করে পৃথিবীর মোট জনসংখ্যার ২.৫% মানুষ। বাংলাদেশের মত নিম্ন এবং মধ্যম আয়ের দেশগুলির বাৎসরিক মোট মৃত্যুর প্রায় ৬৭% ই মারা যান উচ্চরক্তচাপ, ডায়াবেটিস, স্থুলতা, ক্যান্সার ইত্যাদির মত অসংক্রামক রোগে। বাংলাদেশের মোট জনসংখ্যার প্রায় ১৭% (প্রায় ২ কোটি ৭০ লক্ষ) স্থুলতায়, ২০% (প্রায় ৩ কোটি ২০ লক্ষ) উচ্চ রক্তচাপে এবং ১০% (প্রায় ১ কোটি ৬০ লক্ষ) ডায়াবেটিসে আক্রান্ত। আমাদের দেশের বেশীরভাগ সাধারণ মানুষ তেমন স্বাস্থ্য সচেতন নন। সচেতনতার অভাবের পাশাপাশি গ্রামের বিশাল জনগুষ্ঠি আধুনিক ও যুগোপযোগী চিকিৎসাসেবা থেকেও বঞ্চিত। মজার ব্যাপার হচ্ছে অসংক্রামক রোগ মোকাবেলা করার সর্বোত্তম উপায় হল প্রতিরোধমূলক স্বাস্থ্যসেবা।
এ অবস্থায়, যারা বিভিন্ন পর্যায়ে স্বাস্থ্যসেবার সাথে জড়িত তাদের জন্য দেশীয় এবং আন্তর্জাতিক পুরষ্কারপ্রাপ্ত সিমেড নিয়ে এসেছে সাধারন মানুষকে ডিজিটাল পদ্ধতিতে প্রাথমিক ও প্রতিরোধমুলক স্বাস্থ্যসেবা দেয়ার অত্যাধুনিক পদ্ধতি “ডিজিটাল হেলথকেয়ার সার্ভিস” বা “সুস্বাস্থ্যসেবা”।সুস্বাস্থ্য সেবার মাধ্যমে একজন স্বাস্থ্যকর্মী খুব সহজেই তার মোবাইল এবং মোবাইলে সংযুক্ত FDA/CE অনুমোদিত স্মার্ট মেডিকেল ডিভাইস ব্যবহার করে অতি সহজে কিন্তু দক্ষতার সাথে গ্রাম বা শহরের সাধারণ মানুষের স্বাস্থ্যের গুরুত্বপূর্ণ লক্ষণগুলো পরিমাপ করতে ও উন্নত স্বাস্থ্যসেবা দিতে পারেন।

সুস্বাস্থ্য সেবার বিশেষত্ব

  • যে কোন মানুষকে সুস্বাস্থ্য এজেন্ট অ্যাপের মাধ্যমে সুস্বাস্থ্যসেবা সিস্টেমে রেজিষ্টার করে তার জন্য একটি ডিজিটাল হেলথ একাউন্ট অর্থাৎ সুস্বাস্থ্য একাউন্ট খোলা যায়। ব্যাংক একাউন্ট বা ফেইসবুক একাউন্টের মতই সুস্বাস্থ্য একাউন্টে একজন সেবাগ্রহীতার স্বাস্থ্য পরিমাপ সহ স্বাস্থ্যের সকল তথ্য জমা থাকবে।
  • মোবাইলের সাথে স্মার্ট ডিজিটাল মেডিকেল ডিভাইস সংযুক্ত করে সেবাগ্রহীতার রক্তচাপ, ডায়াবেটিস, রক্তে অক্সিজেনের মাত্রা, তাপমাত্রা, উচ্চতা, ওজন ও বিএমআই সহ বিভিন্ন স্বাস্থ্য পরিমাপ করা যায়।
  • স্বাস্থ্য পরিমাপের সকল তথ্য সাথে সাথেই সম্পুর্ণ নিরাপদ ক্লাউড সার্ভারে সেবাগ্রহীতার ডিজিটাল হেল্‌থঅ্যাকাউন্টে স্বয়ংক্রিয়ভাবে জমা হয়ে যায়।
  • স্বাস্থ্য পরিমাপের ফলাফল রিপোর্ট আকারে এসএমএস বা ইমেইলের মাধ্যমে সেবাগ্রহীতাকে পাঠানো যায়। তা ছাড়া স্বাস্থ্য বিষয়ক বিভিন্ন পরামর্শতো আছেই।
  • পরিমাপের ফলাফলের উপর ভিত্তি করে সুস্বাস্থ্য অ্যাপ স্বয়ংক্রিয়ভাবে স্বাস্থ্যের ঝুঁকি বিশ্লেষণ করে প্রয়োজনীয় স্বাস্থ্য পরামর্শ প্রদান করে এবং প্রয়োজন বোধে ডাক্তারের সাথে সংযোগ স্থাপন করতেও সক্ষম।
  • সংশ্লিষ্ট স্বাস্থ্যকর্মীর জন্য একজন সেবাগ্রহীতাকে স্বাস্থ্যসেবা প্রদান, স্বাস্থ্যঝুঁকি যাচাই, পরামর্শ এবং তথ্য সংরক্ষণ করা খুবই সহজ হয়ে যায়।

কেন সুস্বাস্থ্য কর্মী হবেন

  • একজন স্মার্ট সুস্বাস্থ্য কর্মী সুস্বাস্থ্যসেবা পরিচালনার মাধ্যমে অর্থনৈতিক এবং সামাজিক দুইভাবেই লাভবান হতে পারবেন।
  • আধুনিক ডিজিটাল পদ্ধতিতে স্বাস্থ্যসেবা দেওয়ার ফলে আপনার কাছ থেকে সেবা নেওয়ার জন্য সেবাগ্রহীতার আগ্রহ বৃদ্ধি পাবে, সেবাগ্রহীতার সংখ্যা বাড়বে।
  • সেবাগ্রহীতার সংখ্যা বৃদ্ধির পাশাপাশি স্মার্ট স্বাস্থ্যসেবা কর্মী হিসাবে এলাকায় আপনার সম্মান এবং প্রভাবও বাড়বে।
  • এলাকার মানুষকে নিয়মিত স্মার্ট স্বাস্থ্যসেবা প্রদানের মাধ্যমে মোটামুটি চার মাসের মধ্যে স্মার্ট মেডিক্যাল ডিভাইস বা যন্ত্রপাতি কেনার জন্য বিনিয়োগকৃত মূলধন ফেরত আসে। আর স্মার্ট ডিভাইসগুলোতো থেকেই যাবে।
  • প্রতি মাসে আনুমানিক ১০,০০০ টাকা বা তদূর্ধ পর্যন্ত উপার্জনের সুযোগ।
  • সেবাগ্রহীতার সংখ্যা বৃদ্ধির ফলে যারা ফার্মেসির সাথে জড়িত, তাদের ফার্মেসিতে আগের তুলনায় ঔষধ বিক্রয় অনেকাংশে বেড়ে যাবে।
  • এলাকায় স্বাস্থ্যসেবী হিসাবে সম্মান এবং প্রভাব বৃদ্ধির পাশাপাশি নিজের অর্থনৈতিক এবং সামাজিক ভিত্তি হবে আরো মজবুত এবং দৃঢ়।
  • সিমেডের কার্যকরী প্রশিক্ষণ ও সার্বক্ষণিক সহায়তাতো থাকছেই।

কারা স্মার্ট সুস্বাস্থ্য কর্মী (এসএসকে) হতে পারবেন

বর্তমানে গতানুগতিক পদ্ধতিতে স্বাস্থ্যসেবা দেন এমন যেকোন স্বাস্থ্যসেবা প্রদাণকারী।

যিনি মেডিকেল ডিপ্লোমা কোর্সধারী,গ্রাম ডাক্তার বা ফার্মেসী ব্যবসার সংগে জড়িত।

যিনি স্বাস্থ্য উদ্যোক্তা হয়ে নিজের এলাকার মানুষকে ডিজিটাল স্বাস্থ্যসেবা দিয়ে স্বাবলম্বী হতে চান।

বিশেষ ছাড়কৃত মূল্যে ডিজিটাল স্মার্ট মেডিকেল ডিভাইস কেনার জন্য বিনিয়োগ করতে সক্ষম।

স্মার্ট ফোন এবং মোবাইল অ্যাপ পরিচালনায় সক্ষম ।

সুস্বাস্থ্য স্মার্ট হেলথ কিট ও মোবাইল অ্যাপ

আপনার আগ্রহের কথা এখনি সিমেড হেল্‌থ লিমিটেড-এ জানান। আবেদন ফর্ম পূরণ করতে ক্লিক করুন
সিমেডের সুস্বাস্থ্য সেবা টীম আপনার সাথে যোগাযোগ করবে। নির্বাচিত হওয়ার পর সিমেড থেকে আপনাকে অ্যাপ এর মাধ্যমে স্মার্ট মেডিকেল ডিভাইস ব্যবহার, সুস্বাস্থ্য অ্যাপ পরিচালনা পদ্ধতি, প্রাথমিক ও প্রতিরোধ্মূলক স্বাস্থ্যসেবার বিস্তারিত ও রোগীর সাথে যোগাযোগের দক্ষতা বৃদ্ধি সম্পর্কে বিস্তারিত প্রশিক্ষণ দেওয়া হবে। আর এ মূহুর্তে প্রশিক্ষণ দেওয়া হবে শতভাগ ডিসকাউন্টে। প্রশিক্ষণের পর আপনি হবেন একজন গর্বিত সুস্বাস্থ্যকর্মী। আরো জানতে ফোন করুন  01701-663988
সমগ্র পৃথিবী যখন ডিজিটাল হচ্ছে তখন আপনিও যুগের চাহিদা অনুযায়ী ডিজিটাল বাংলাদেশ বিনির্মাণে যুগান্তকারী ভূমিকা পালন করতে পারেন। বাংলাদেশের ভিশন-২০২১ ‘ এর সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ একটি শাখা হচ্ছে স্বাস্থ্যসেবা খাত। স্বাস্থ্যসেবার মান উন্নয়নে সরকার নিরলস কাজ করে চলছে। আর এই কাজে সফল হতে আমাদের সম্মিলিত অংশগ্রহণ প্রয়োজন। আধুনিক চিকিৎসা সুবিধা বঞ্চিত গ্রামের সাধারণ মানুষকে পশ্চিমা বিশ্বের মত আধুনিক ও স্মার্ট স্বাস্থ্যসেবা দিয়ে আপনিও হতে পারেন এই মহান উদ্দ্যোগের অংশীদার।

Connecting People, Saving Lives